বিসিএস লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি নির্দেশনা

 বিসিএস লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি নির্দেশনা

ডা. ইরফান হাফিজ

🟢বাংলাদেশ বিষয়াবলি 

-প্রয়োজনীয় চিহ্নিত চিত্র ও ম্যাপ আঁকুন। যথাস্থানে বিভিন্ন ডাটা, টেবিল, চার্ট, রেফারেন্স দিন। পেপার থেকে উদ্ৃব্দতি দেওয়ার সময় সোর্স এবং তারিখ উল্লেখ করে দেবেন। পরীক্ষার খাতায় এমন কিছু দেখান, যেটা আপনার লেখাকে আলাদা করে তোলে। যেমন ধরুন, বিভিন্ন সোর্সসহ রেফারেন্স দিতে পারেন। উইকিপিডিয়া কিংবা বাংলাপিডিয়া থেকে উদ্ৃব্দত করতে পারেন। বিভিন্ন মিডিয়ায় দেশের নানা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি কে কী বললেন, সেটা প্রাসঙ্গিকভাবে লিখতে পারেন।

- বিভিন্ন রেফারেন্স, টেক্সট ও প্রামাণ্য বই অবশ্যই পড়তে হবে। বিসিএস পরীক্ষায় অনেক প্রশ্নই কমন পড়ে না। এসব বই পড়া থাকলে উত্তর করাটা সহজ হয়। প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় লেখকের রচনা, পত্রিকার কলাম ও সম্পাদকীয়, ইন্টারনেট, বিভিন্ন সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট, সংবিধানের সংশ্নিষ্ট ধারা, নানা রেফারেন্স থেকে উদ্ধৃতি দিলে মার্কস বাড়বে।

-বাংলাদেশের সংবিধান ভালো করে পড়বেন। কোনো প্রশ্নের উত্তরে সংবিধানের ধারা উল্লেখ করার সুযোগ থাকলে ধারাটি তুলে ধরবেন। পুরো সংবিধান মুখস্থ করার কোনো দরকারই নেই। যেসব ধারা থেকে বেশি প্রশ্ন আসে, সেগুলোর ব্যাখ্যা খুব ভালোভাবে বুঝে বুঝে পড়ূন। সংবিধান থেকে ধারাগুলো হুবহু উদ্ধৃত করতে হয় না। 

-লেখার মধ্যে যতটা সম্ভব তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরবেন। তথ্য-উপাত্ত বেশি হলে চার্ট বা টেবিল এঁকে তথ্য তুলে ধরবেন। তাতে কম সময়ে বেশি তথ্য তুলে ধরতে পারবেন। সরকার কর্তৃক প্রকাশিত অর্থনৈতিক সমীক্ষা থেকে যে কোনো তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করবেন। তাহলে তথ্যটি নির্ভুল ও গ্রহণযোগ্য হবে বেশি। তবে কখনই ভুল তথ্য দেবেন না। 


🟢আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি


বিগত বছরের সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও টীকাগুলো একবার পড়ে নেবেন। যেসব প্রশ্ন বর্তমানে প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েছে, তা পড়ার প্রয়োজন নেই।

-আন্তর্জাতিক বিষয়াবলির মোটামুটি সব প্রশ্নের উত্তরই নেটে পাবেন। তাই সবচেয়ে ভালো হয় যদি টপিকগুলো গুগলে সার্চ করে পড়েন। প্রয়োজনে টপিকের নাম বাংলায় টাইপ করে সার্চ করুন। ষউইকিপিডিয়া, বাংলাপিডিয়া, বিভিন্ন সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে প্রশ্নের উত্তর পড়লে সময় বেঁচে যাবে, মার্কসও ভালো আসবে। পেপারে দৈনিক এবং সাপ্তাহিক আন্তর্জাতিক পাতাটি, দ্য হিন্দু, দি ইকোনমিস্ট, টাইমস অব ইন্ডিয়া, প্রজেক্ট সিন্ডিকেটসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পত্রিকা থেকে প্রয়োজনীয় আর্টিকেলগুলো পড়তে পারেন।

-সব প্রশ্নের উত্তর বিশ্নেষণধর্মী হতে হবে। এখানে ম্যাপ ব্যবহার ও চিত্রনির্ভর উপস্থাপনার চেষ্টা করবেন, এতে ভালো নম্বর আসবে। জাতিসংঘ ও তার বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন, কার্যাবলিসহ আন্তর্জাতিকভাবে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং বিশ্বের প্রধান প্রধান সমস্যা ও দ্বন্দ্ব, বিশ্ববাণিজ্য, উন্নয়ন, বিনিয়োগসহ চলমান গুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো ভালোভাবে পড়বেন। এ ছাড়া মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ এশিয়া, দূরপ্রাচ্য, দক্ষিণ চীন সাগর, ভূমধ্যসাগর এবং বিভিন্ন আঞ্চলিক ও সামরিক জোট, ইইউ, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকলে উত্তর করা সহজ হবে।

-আন্তর্জাতিক ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলোও জেনে যেতে হবে। 

-পড়ার সময় আলাদা খাতায় সংক্ষিপ্ত আকারে নোট করতে পারেন, যাতে পরীক্ষার আগে একটু দেখা যায়।

-কোয়াড বিতর্ক, রোহিঙ্গা সমস্যা, জাতিসংঘের সর্বশেষ সাধারণ সম্মেলন, আফগানিস্তানে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার ও তালেবানের শাসন, প্রভাবশালী রাষ্ট্রের সাম্প্রতিক পররাষ্ট্রনীতি, করোনা টিকার রাজনীতি পড়ে যাবেন।

-প্রশ্নের উত্তর লেখার সময় বিষয় সম্পর্কিত ম্যাপ, চিত্র, তুলনামূলক ছক, হার, সারণি ইত্যাদি দেওয়া যেতে পারে।

-যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, ইরান, রাশিয়া, চীন- এসব দেশের সঙ্গে পরস্পরের অর্থনৈতিক, সামরিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক কেমন, তা জেনে যাওয়া নিরাপদ।

- আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও আন্তর্জাতিক রাজনীতির পারস্পরিক বিষয়গুলো থেকে এখানে প্রশ্ন আসে। রাষ্ট্রের প্রকৃতি, আধুনিক রাষ্ট্রব্যবস্থা, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, জাতিরাষ্ট্র, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, ক্ষমতার ভারসাম্য, জাতীয়তাবাদ, অস্ত্র, সন্ত্রাসবাদ, উপনিবেশবাদ, বিশ্বায়ন ও বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ ভালোভাবে জানতে হবে।

- বাংলাদেশ, ভারত, চীন, মিয়ানমার, পাকিস্তান- এসব দেশের মধ্যকার সম্পর্ক বা সমস্যা সম্পর্কিত প্রশ্ন বেশি গুরুত্বপূর্ণ। 

।।

সমকাল

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url